থ্রিলার নাটক এয়ারবেন্ডার


কী একখান নাটক দেখলাম রে বাবা! বাংলা নাটকের জেনর যদি হয় হরর/মিস্ট্রি/থ্রিলার এবং সেই হরর যদি হয় জম্বি, তাহলে একটু নড়েচড়ে বসতে হয় বৈকি! বলছিলাম তানিম রহমান অংশুর ঈদের নাটক “এয়ার বেন্ডার” এর কথা। এটার ট্রেলার দেখেই বুঝে গিয়েছিলাম দারুণ একটা নাটক হতে যাচ্ছে এটা। এই পরিচালকের কাজ আগেও দেখেছি। ভালোই নাটক বানায়। প্রচলিত বাংলা নাটকের চেয়ে ভিন্নধর্মী বলেই একটা বাড়তি আকর্ষণ থাকে এর কাজের প্রতি।

নাটকের কাহিনী আহামরি কিছু না, কাহিনীর ফিনিশিংও ঠিকমতো হয়নি, কিন্তু নাটকের মেকিংটা অসাধারণ। এটা যে বাংলা নাটক, সেটা বিশ্বাস করতেই কষ্ট হয়। বিশেষ করে প্লনের ভেতরে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার দৃশ্যে পরিচালক ভালোই সাসপেন্স তৈরি করতে পেরেছিল। এই পরিচালকের এই জাতীয় আরো চার-পাঁচটা কাজের পরই সিনেমা তৈরির কথা ভাবা উচিত।
সামান্য একটা নাটকের জন্য পরিচালক ভালোই আয়োজন করেছে।

এয়ারপোর্টের ভেতরে শ্যুটিং, প্লেনের ভেতরে শ্যুটিং, অথবা অন্ততপক্ষে প্লেনের সেট তৈরি করা, গোলাগুলি এবং ফাইটিং-এর সাউন্ড ইফেক্ট, জম্বি দৃশ্যগুলোর ভিজুয়্যাল ইফেক্ট সবকিছুই মোটামুটি মানসম্মত হয়েছে। বাংলা নাটককে হলিউডের সাথে তুলনা করলে তো আর হবে না, বাংলা সিনেমাগুলোর সাথে তুলনা করলে এই কাজটা হাজারগুণে ভালো হয়েছে। কাহিনী হয়তো অসাধারণ কিছু না, কিন্তু লুতুপুতু প্রেমের কাহিনী আর ভাঁড়ামি থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করায় প্রযোজক/পরিচালক ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।

নাটকটার কি নেগেটিভ কিছু নাই? অবশ্যই আছে। অভিনয়ের কথা বললে শুধু মাত্র মিশু সাব্বির ছাড়া আরো অভিনয়ই খুব একটা ভালো লাগে নি। সুজানার অভিনয়ে তো রীতিমতো বিরক্তি লাগছিল। নাটকের ডায়লগে অতিরিক্ত ইংরেজি বাক্য ব্যবহার করা হয়েছে, যেটা আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে বেমানান। বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার ফ্লাইট, অথচ প্লেনে মাত্র এই কয়জন যাত্রী? অবশ্য বাজেটের কথা চিন্তা করলে এটা ইগনর করাই ভালো। নাটকটার কালার কারেকশনের উদ্যোগটা ভালো ছিল। কিন্তু সেটা অতিরিক্ত হয়ে গেছে। হলুদ রংয়ের ইফেক্টটা অতিরিক্ত চোখে পড়েছে।

এই জাতীয় কাজ বাংলাদেশে এর আগে খুবই কম হয়েছে। সেই দিক বিবেচনা করলে টেকনিক্যাল ভুলগুলোকে ক্ষমা করা যায়। সব মিলিয়ে আমার মতে নাটকটা বেশ ভালো একটা নাটক। আমার ব্যক্তিগত রেটিং 10 এ 8 (হলিউডের সাথে তুলনীয় না)। এবং আমার মনে হয় সবারই এই জাতীয় ব্যতিক্রমধর্মী নাটক দেখা উচিত। আশা করা যায় দর্শকদের সাপোর্ট পেলে বিভিন্ন জঁনরার নাটকে বাংলাদেশ আরো উন্নতি করবে। টকটির অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছে অপূর্ব, টয়া, শ্যামল মাওলা  এবং তারিক আনাম খান।

প্রথম লেখা: ২৪ জুলাই, ২০১৫, ফেসবুকে

 

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s