ফেসবুকের তথ্য চুরির উপকারিতা


ফেসবুক স্ক্যান্ডাল নিয়ে অনেকেই বিশাল বিশাল জ্ঞানগর্ভ লেখা দিছে, আমিও রোরের জন্য একটা অজ্ঞানগর্ভ লেখা লিখছিলাম। বাট ভিন্নভাবেও একটু চিন্তা করি।

আমার মতে, ফেসবুক ইউজারদের ডেটা সরকারী গোয়েন্দা সংস্থাগুলো দ্বারা ব্যবহৃত হয় – এটাই নেগেটিভ বিষয়। যদি সেটা না হয়ে শুধুমাত্র আমাদের লাইক-আনলাইকের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন প্রডাক্টের বিজ্ঞাপন আমাদের সামনে আসত, তাহলে সমস্যা কী ছিল? আমার তো মনে হয় এটা বরং একটা প্লাস পয়েন্ট!

ধরুন আপনি টিভিতে নাটক দেখতে বসলেন। আপনাকে দুনিয়ার সব অ্যাড দেখতে হবে। আপনি বিলাসিতা পছন্দ করেন না বা আপনার সামর্থ্য নাই, কিন্তু তারপরেও আপনাকে আমিন জুয়েলার্সের অ্যাড দেখতে হবে। আপনি থাকেন শহরে, অ্যাপার্টমেন্ট বিল্ডিংয়ে, অথচ তারপরেও আপনাকে গরু মার্কা ঢেউ টিন দেখতে হবে। আপনার বয়স সত্তর পেরিয়ে গেছে, অথবা আপনি স্কুল পড়ুয়া নাবালক, তারপরেও আপনাকে দেখতে হবে আসল পুরুষের বিজ্ঞাপন!!!

কিন্তু বিপরীত দিকে গুগল-ফেসবুক-ইউটিউব যেহেতু আপনার পছন্দ-অপছন্দ জানে, তাই ভার্চুয়ালি আপনার অপ্রয়োজনীয় কোনো অ্যাড দেখার কথা না। আপনি বই পছন্দ করেন, গুগলে কিছু বই খুঁজলেন, এরপর থেকে দেখবেন গুগল আপনার আশেপাশেই আকর্ষণীয় বইগুলোর বিজ্ঞাপন দেখাচ্ছে।

এরচেয়ে চমৎকার ব্যাপার আর কী হতে পারে? এখন আপনি যদি বলদ হন, বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয় না থিওরীতে বিশ্বাস করে অ্যাডে দেখা সব বই সিরিয়াল ধরে কেনা শুরু করেন, তাহলে সেটা তো আপনার দোষ!

একই ব্যাপার ইউটিউবেও। আপনার শিশুদের ভিডিও দেখতে ভালো লাগে, সেটা বুঝতে পারলেই ইউটিউব একটু পরপর আপনাকে শিশুদের আকর্ষণীয় ভিডিওগুলো সাজেস্ট করবে। অর্থাৎ আপনি খুব বেশি কষ্ট না করেই আপনার পছন্দের জিনিস হাতের নাগালে পেয়ে যাচ্ছেন। সেগুলো যে বেস্ট কোয়ালিটির হবে, নিশ্চয়তা নাই, বাট বিজ্ঞাপনের নিয়মই তো সেটা।

ফেসবুকেও অনেকটা সেরকম ব্যাপার। ফেসবুক আপনার লোকেশন, স্ট্যাটাস, লাইক, শেয়ার এগুলো বিশ্লেষণ করে আপনার সম্পর্কে আরো তথ্য জানে। যেমন ধরেন ফেসবুকে আপনি এনগেজমেন্টের স্ট্যাটাস দিলেন, এর পর থেকেই ফেসবুক আপনাকে কোথায় কোথায় ব্রাইডাল স্যুট/গাউন পাওয়া যায়, সেটার বিজ্ঞাপন দেখাবে। সমস্যা কী? আপনার কাজে লাগতেও পারে! কিন্তু অ্যাড দেখামাত্রই ঝাঁপিয়ে পড়ে কিনতে হবে, এমন তো না!

ফেসবুক আপনার পছন্দ-অপছন্দ বুঝতে পেরে আপনাকে পলিটিকাল উদ্দেশ্যেও বিভিন্ন বিজ্ঞাপন বা ফেক নিউজ দেখাতে পারে। যেমন আপনার স্ট্যাটাস দেখে ফেসবুক বুঝল আপনি উগান্ডা দেশটার খুব ভক্ত, প্রায়ই উগান্ডা নিয়ে স্ট্যাটাস দেন, উগান্ডার নিউজ দেখলেই শেয়ার দেন।

এখন হতে পারে ফেসবুকের কাছ থেকে সেই ডেটা কিনে নিয়ে এরশাদ কাক্কুর জাতীয় পার্টি ফেসবুকের মাধ্যমেই আপনার ফীডে বিজ্ঞাপন/ফেক নিউজ প্রমোট শুরু করল যে, তারা ক্ষমতায় আসলে দেশকে উগান্ডা বানিয়ে দিবে, দেশে উগান্ডার চেতনা কায়েম করবে … ইত্যাদি ইত্যাদি।

এখন কথা হচ্ছে, আপনি সেই ফাঁদে পা দিবেন কেন? আপনাকে তো ফেক নিউজ চেনা শিখতে হবে! আর আসলেই কোন দল দেশকে উগান্ডা বানিয়ে দিচ্ছে, সে বিষয়েও তো আপনার ধারণা থাকতে হবে  বিজ্ঞাপন দেখেই সবাইকে উগান্ডা বলে বিশ্বাস করবেন, এরপর যত দোষ জুকারঘোষ বলে গালাগালি করবেন, এটা তো উচিত না!

প্রথম লেখা: ২৮ মার্চ, ২০১৮, ফেসবুকে

একই বিষয়ের লেখা:

ফেসবুকের নির্বাচনী কেলেঙ্কারিতে আছে বাংলাদেশর নামও: আপনি নিরাপদ তো?

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s