বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না!


বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না। দাবি করা হয়, দেরা’তে যখন স্কুলের বাচ্চারা তার বিরুদ্ধে দেয়াল লিখন লিখেছিল, তখন নাকি বাশারের মুখাবারাত সেই ছাত্রদেরকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল, লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছিল, দিনের পর দিন হাত বেঁধে ছাদ থেকে ঝুলিয়ে রেখেছিল, প্লায়ার্স দিয়ে তাদের নখ টেনে উপড়ে ফেলেছিল।

দেশপ্রেমিক জনগণ অবশ্য এগুলো বিশ্বাস করে না। তারা জানে এগুলো মিথ্যা, ষড়যন্ত্র। জনগণের কিছু দাবি মেনে নিলেই যেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব, তখন বাশার কেন বোকার মতো এই কাজ করতে যাবে? আর তাছাড়া কোনো দেশের সরকার প্রধান, যতোই খারাপ হোক, নিজ দেশের সাধারণ জনগণের উপর, স্কুলের ছাত্রদের উপর আক্রমণ করে রক্তাক্ত করা কি কখনো সম্ভব? সম্ভব?

ষড়যন্ত্রকারীর দল দাবি করে, দেরা’র ছেলেগুলো এবং পরবর্তীতে তাদের আত্মীয়-স্বজনরা, যারা প্রথমে আন্দোলন শুরু করেছিল, তাদের অধিকাংশই নাকি ছিল সাধারণ মানুষ। কিন্তু সিরিয়ার বিটিভির দেওয়া তথ্য অনুসারে আমরা জানি, তারা সবাই আসলে জামাত-শিবিরের সিরীয় শাখা, জঙ্গি সংগঠন নুসরা-আইএসের সদস্য, যাদেরকে সৃষ্টি করেছে আইএসআইর সিরীয় শাখা, সৌদি গোয়েন্দাবাহিনী, সাহায্যে ছিল মোসাদ-সিআইএ।

দালালের দল মাঝেই মাঝেই মিথ্যা ছবি প্রচার করে দাবি করে, বাশার নাকি নিজের জনগণের উপরেই বম্বিং করে, গ্যাস অ্যাটাক করে! কোন কথা হল এগুলো? মনে আছে, দালাল সিএনএন একটা ছবি ভাইরাল করেছিল পিচ্চি একটা বাচ্চার, দাবি করেছিল সে নাকি বাশারের বম্বিংয়ে আহত হয়েছিল? অথচ দেশপ্রেমিক সিরিয়ান সেনাবাহিনী যখন পরবর্তীতে ঐ এলাকা দখল করেছিল, তখন ঠিকই দেখা গেল ঐ ছেলের বাবা সরকারের পক্ষে বক্তব্য দিচ্ছে। কোনো বাবা কি সন্তানের উপর হামলার পরেও হামলাকারীদের পক্ষে বক্তব্য দিতে পারে? পারে?

বাশার আল-আসাদই হচ্ছে সিরিয়ার একমাত্র সমাধান। বাশারের পাশে আছে, তার দীর্ঘদিনের বন্ধুরাষ্ট্র ইরান। দশকের পর দশক ধরে বাশারের এবং তার পিতা, হাফেজ আল-আসাদ, যে ছিল সিরিয়ার জাতির পিতা, তাদের করা উন্নয়নকে বিনষ্ট করার জন্যই আইএসআইর সিরীয় শাখা সিরিয়াকে ধ্বংস করেছে। হ্যাঁ, কিছু সিরীয় যে মাঝে মাঝে একটু বাড়াবাড়ি করেনি, সেটা না। কিন্তু বাশারের কোনো দোষ নাই। বাশার হচ্ছে ফাদার অফ এভরিথিং গুড। মাঝে মাঝে বাশারকে একটু ভুল বোঝানো হয়, কিন্তু সেটা ব্যাপার না।

সব সময় এইসব গণতন্ত্র-ফনতন্ত্র দিয়ে দেশ চলে না। উন্নয়নের জন্য, দেশের বৃহত্তর স্বার্থের জন্য বাশারের মতো শক্তিশালী শাসক, এবং তার দেশপ্রেমিক বাহিনীকেই দরকার। যারা এইসব রাজাকারদের সব ষড়যন্ত্র ধ্বংস করে দিবে। দরকার হলে সেজন্য পুরা সিরিয়াকে রক্তের বন্যায় ভাসিয়ে দিবে, তাতে কিছুই যায় আসে না। লং লিভ বাশার আল-আসাদ! আল্লাহ্‌, ওয়া বাশ্‌শার, ও সুরিয়া, ও বাস্‌!

প্রথম লেখা: ৪ আগস্ট ২০১৮, ফেসবুকে

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s