Category Archives: বাংলাদেশের রাজনীতি

বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে আমার ভাবনা

ঘাতক বাস চালকের জবানবন্দীর অন্তরালে

বাস চালকের জবানবন্দী পড়ে আমি আবেগে অভিভূত হয়ে গেলাম। আমার চোখ দিয়ে নিজের অজান্তেই ঝর ঝর করে পানি পড়তে লাগল। মানবতা এখনও বেঁচে আছে, হারিয়ে যায়নি!

ভেবে দেখেন, সবগুলো পত্রিকায় গত এক সপ্তাহে এসেছে, এটা ছিল বেপরোয়া ড্রাইভিংয়ের কারণে দুর্ঘটনা। চালক ইচ্ছে করে বাচ্চাদের উপর গাড়ি উঠিয়ে দিয়ে তাদেরকে খুন করেছে, এটা কেউ দাবি করেনি। চালক যদি নিজ মুখে স্বীকার না করত, তাহলে সেটা প্রমাণ করারও কোনো উপায় ছিল না। আর এরকম ক্ষেত্রে সাধারণত কেউ স্বীকারও করে না। ঠিক এ ধরনের কেসে কয়টা এরকম স্বীকারোক্তি শুনেছেন?

Continue reading ঘাতক বাস চালকের জবানবন্দীর অন্তরালে

গুজব কেন আন্দোলনের জন্য ক্ষতিকর

গুজব সাধারণত তিন পক্ষ ছড়ায়। অতি উৎসাহী পক্ষ, বেকুব পক্ষ এবং সরকারী পক্ষ। তিনটাই আন্দোলনের জন্য ক্ষতিকর।

এ জন্য আমি সব সময়ই গুজবের বিরুদ্ধে। গুজব অধিকাংশ সময়ই ভালো ফলাফল বয়ে আনে না। অ্যাজ এ মেম্বার অফ অতি উৎসাহী পক্ষ, আপনি হয়তো মনে করতে পারেন, গুজব ছড়িয়ে বিপ্লব ঘটিয়ে দিব। কখনো কখনো হয়তো এ পদ্ধতিতে সফল হওয়া সম্ভব, কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে এটা ব্যাকফায়ার করার সম্ভাবনাই বেশি।

Continue reading গুজব কেন আন্দোলনের জন্য ক্ষতিকর

বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না!

বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না। দাবি করা হয়, দেরা’তে যখন স্কুলের বাচ্চারা তার বিরুদ্ধে দেয়াল লিখন লিখেছিল, তখন নাকি বাশারের মুখাবারাত সেই ছাত্রদেরকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল, লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছিল, দিনের পর দিন হাত বেঁধে ছাদ থেকে ঝুলিয়ে রেখেছিল, প্লায়ার্স দিয়ে তাদের নখ টেনে উপড়ে ফেলেছিল।

দেশপ্রেমিক জনগণ অবশ্য এগুলো বিশ্বাস করে না। তারা জানে এগুলো মিথ্যা, ষড়যন্ত্র। জনগণের কিছু দাবি মেনে নিলেই যেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব, তখন বাশার কেন বোকার মতো এই কাজ করতে যাবে? আর তাছাড়া কোনো দেশের সরকার প্রধান, যতোই খারাপ হোক, নিজ দেশের সাধারণ জনগণের উপর, স্কুলের ছাত্রদের উপর আক্রমণ করে রক্তাক্ত করা কি কখনো সম্ভব? সম্ভব?

Continue reading বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না!

কিশোর আন্দোলনের ভবিষ্যত

এই মুহূর্তে আন্দোলনের অবস্থাটা হচ্ছে কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রথম পর্যায়ের মতো। যেদিন এশাকে জুতার মালা গলায় দেওয়ানো হয়েছিল, সেদিনের মতো। আন্দোলনকারীদের মোরাল চরমে। আর সরকার আছে ভয়ে। সে কারণেই এই মুহূর্তে খুব বেশি পেটাবে না। এবং সে কারণেই পুলিশ, ছাত্রলীগ পজিটিভলি কথা বলছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী  কী ধরনের নেগেটিভ বক্তব্য দিতে পারেন, সেটা নিয়ে কয়েকটা ট্রোল পোস্ট ফেসবুকে ভেসে বেড়াচ্ছে। কিন্তু আমার মতে এখনই সেরকম বক্তব্য আসবে না। বরং ছাত্রদের পক্ষ নিয়ে, তাদেরকে আশ্বাস/প্রতিশ্রুতি দিয়েই কোনো বক্তব্য আসবে। সেই প্রতিশ্রুতির উপর ছাত্ররা ঈমান আনবে কিনা, সেটা তাদের বিবেচনা।

Continue reading কিশোর আন্দোলনের ভবিষ্যত

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ে বিএনপি সমর্থকদের অবস্থান

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে বেশ কিছু বিচ্ছিন্ন স্ট্যাটাস পড়লাম। যা মনে হলো, নেক্সট টাইম বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসবে, তখন আমাদের প্রচলিত ইতিহাসে যেসব মিথ আছে, তার অনেকগুলোই গুঁড়িয়ে যাবে।

যেকোনো দেশেই বিজয়ীদের হাতে মিথ তৈরি হয়। প্রাথমিক আবেগটা কেটে গেলে হয়তো একটা সময় পরে ধীরে ধীরে সেগুলো অ্যাকাডেমিকালি সেটেলডও হয়ে যায়। বাংলাদেশেও হয়তো সেটা হতো, কিন্তু সে সম্ভাবনা পুরোপুরি শেষ হয়ে গেছে।

Continue reading মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ে বিএনপি সমর্থকদের অবস্থান

নির্বাচন বিষয়ক একটি মিসরীয় কৌতুক

নির্বাচন উপলক্ষে এক মিসরী ইঞ্জিনিয়ারের কাছ থেকে শোনা একটা মিসরী কৌতুক মনে পড়ল। হুসনে মোবারকের সময়ের ঘটনা। এক লোক প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়ে মোবারককে ভোট না দিয়ে প্রতিপক্ষ প্রার্থীকে ভোট দিয়ে এল। ভোটকেন্দ্র থেকে ফিরে বন্ধুদের সাথে গল্প করার সময় যখন সে বলল যে সে মোবারককে দেয় নি, বন্ধুদের তো মাথায় হাত – বলিস কি? করেছিস কি তুই? এন্তা মাগনুন? 🙂 অর্থাত্‍ তুই কি পাগল? তাড়াতাড়ি যা, সময় থাকতে এখনও আবেদন করে ভোটটা পরিবর্তন করে দিয়ে আয়, তা না হলে তোর পেছনে গোয়েন্দা বিভাগের লোক লেগে থাকবে।

Continue reading নির্বাচন বিষয়ক একটি মিসরীয় কৌতুক

সাইফ আল-ইসলামের ফাঁসির রায় এবং দ্রুত বিচারের সমস্যা

গাদ্দাফীর ছেলে সাইফুল ইসলাম সহ মোট নয়জনকে ২০১১ সালের যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে ত্রিপলীর একটা আদালত। বিএনপিপন্থীদের ভাষায় বলতে হয়, আমিও এদের বিচারের পক্ষে, কিন্তু … 🙂

এইসব ক্ষেত্রে “ছাগু” ট্যাগ দেওয়াটা ট্রেন্ড হলেও এই কিন্তুটা আসলেই বড় একটা ব্যাপার। এতো বড় একটা যুদ্ধ হয়েছে, এতো হাজার হাজার মানুষ গণহত্যায় মারা গিয়েছে, এর দায় তো কাউকে না কাউকে নিতেই হবে। আর সাইফুল ইসলামের ভাষণগুলো যে বিদ্রোহীদের প্রতি কিরকম উস্কানিমূলক এবং বিদ্বেষমূলক ছিল, সেটা তো আমাদের নিজেদেরই দেখা! কাজেই আমার ধারণা একটা “স্বচ্ছ”, “নিরপেক্ষ” এবং “আন্তর্জাতিক মানের” বিচার হলেও সাইফুল ইসলাম এবং অন্যান্য অভিযুক্তদের ফাঁসি না হলেও যাবজ্জীবন কারাদন্ড অবশ্যই হতে পারতো।

Continue reading সাইফ আল-ইসলামের ফাঁসির রায় এবং দ্রুত বিচারের সমস্যা