Category Archives: বিশ্ব রাজনীতি

বিশ্বের ঘটনাবলি সম্পর্কে আমার ব্যক্তিগত মতামত

অ্যান্টি অ্যামেরিকান নিউজের পরিমাণ কেন বেশি?

পত্রপত্রিকায় বা ইন্টারনেটে সবচেয়ে বেশি সমালোচনা দেখা যায় আমেরিকার বিরুদ্ধে। এর একটা কারণ তো পরিষ্কার – আমেরিকা আসলেই বিশ্বের নাম্বার ওয়ান কালপ্রিট। তা না হলে তারা তাদের সুপার পাওয়ার মেইন্টেইন করতে পারত না।

কিন্তু আমেরিকা বিরোধিতার এটাই একমাত্র কারণ না। আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে, পাবলিক আমেরিকা বিরোধিতা বেশি খায়। সেজন্য দেখা যায় যারা আসলে আমেরিকা বিরোধী না, বা ইনফ্যাক্ট যারা নিজেরাই আমেরিকার পাপেট, তারাও প্রকাশ্যে প্রচন্ড আমেরিকা বিরোধী সাজে এবং পাবলিকের মন জয় করার জন্য অন্যদেরকে আমেরিকাপন্থী, বা যেকোনো অপরাধকে আমেরিকার ষড়যন্ত্র হিসেবে দাবি করতে থাকে।

Continue reading অ্যান্টি অ্যামেরিকান নিউজের পরিমাণ কেন বেশি?

কোনো ঘটনায় যে লাভবান, সেই কি দায়ী?

কোনো ঘটনার পেছনে কারা জড়িত, সেটা বোঝার একটা উপায় হচ্ছে ঐ ঘটনায় কারা লাভবান হচ্ছে, সেটা লক্ষ্য করা।

কিন্তু এই পদ্ধতি কোনো ফুলপ্রুফ পদ্ধতি না। কারণ একই ঘটনায় একাধিক পক্ষ লাভবান হতে পারে। একজনের লাভের গুড় অন্য কেউও খেতে পারে। আবার আমরা যেটাকে স্বল্পকালীন লাভ মনে করছি, কোনো পক্ষ হয়তো সেটাকেই দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতি মনে করতে পারে।

Continue reading কোনো ঘটনায় যে লাভবান, সেই কি দায়ী?

বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না!

বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না। দাবি করা হয়, দেরা’তে যখন স্কুলের বাচ্চারা তার বিরুদ্ধে দেয়াল লিখন লিখেছিল, তখন নাকি বাশারের মুখাবারাত সেই ছাত্রদেরকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল, লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছিল, দিনের পর দিন হাত বেঁধে ছাদ থেকে ঝুলিয়ে রেখেছিল, প্লায়ার্স দিয়ে তাদের নখ টেনে উপড়ে ফেলেছিল।

দেশপ্রেমিক জনগণ অবশ্য এগুলো বিশ্বাস করে না। তারা জানে এগুলো মিথ্যা, ষড়যন্ত্র। জনগণের কিছু দাবি মেনে নিলেই যেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব, তখন বাশার কেন বোকার মতো এই কাজ করতে যাবে? আর তাছাড়া কোনো দেশের সরকার প্রধান, যতোই খারাপ হোক, নিজ দেশের সাধারণ জনগণের উপর, স্কুলের ছাত্রদের উপর আক্রমণ করে রক্তাক্ত করা কি কখনো সম্ভব? সম্ভব?

Continue reading বাশার আল-আসাদরা কখনো হার স্বীকার করে না!

আমেরিকা যেভাবে আইএসকে অস্ত্র সাপ্লাই দেয়

আল-জাজিরার এই ডকুমেন্টারিটা খুবই ইন্টারেস্টিং। কেন, সেটা ব্যাখ্যা করছি। তবে এটা দেখলে আবারও বুঝতে পারবেন কেন আমি হাবিজাবি ভিত্তিহীন প্রপাগান্ডা সাইটের কন্সপিরেসী থিওরীর চেয়ে প্রতিষ্ঠিত মিডিয়ার ইনভেস্টিগেটিভ আর্টিকেল/ডকুমেন্টারি বেশি পছন্দ করি।

প্রচলিত ফেক নিউজের মতো এই ডকুমেন্টারিতে আইএসের কাছে অমুক অস্ত্র পাওয়া গেছে বলেই খালাস হয়নি, সেটা ট্রেস করে বের করা হয়েছে কোথা থেকে কীভাবে এসেছে। কিন্তু তারপরেও ইচ্ছাকৃতভাবে কিছু তথ্য বিকৃতি করা হয়েছে। কয়েকটা পয়েন্ট উল্লেখ করছি।

Continue reading আমেরিকা যেভাবে আইএসকে অস্ত্র সাপ্লাই দেয়

সৌদি আরবে রেপিস্টকে পাঁচ মিনিটে বিচার মৃত্যুদন্ড দেওয়ার ভিডিওর সত্যাসত্য

অনেকেই ভিডিওটা শেয়ার করছে। একটা এক্সিকিউশনের ভিডিও। দাবি করা হচ্ছে, এটা নাকি সৌদি আরবের এক রেপিস্টের ভিডিও, যাকে ধরা পড়ার ৫ মিনিটের মধ্যে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় বলা হচ্ছে, এটা দুবাইর রেপিস্ট, ১৫ মিনিটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে।

এখানে কয়েকটা ব্যাপার আছে। ফ্যাক্টচেক করার টাইম নাই, বাট আমার অ্যানালাইসিসটা বলি:

Continue reading সৌদি আরবে রেপিস্টকে পাঁচ মিনিটে বিচার মৃত্যুদন্ড দেওয়ার ভিডিওর সত্যাসত্য

সৌদি সংক্রান্ত নিউজের বিশ্বাসযোগ্যতা

যা সন্দেহ করেছিলাম, সৌদি বিমানবন্দরগুলোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ইসরায়েলকে – এই সংবাদটি মিথ্যা

এইটা খুবই সিম্পল একটা রুল। সৌদি সংক্রান্ত কোনো নিউজ যদি অন্য কোনো মাধ্যম থেকে না এসে রেডিও তেহরান থেকে আসে, তাহলে সেটা মিথ্যা/অতিরঞ্জিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যাচাই করতে যাওয়াটাই সময়ের অপচয়, ডাইরেক্ট ইগনর করা এবং অন্য কোনো মিডিয়ার জন্য অপেক্ষা করা বেটার।

Continue reading সৌদি সংক্রান্ত নিউজের বিশ্বাসযোগ্যতা

সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত?

সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত? আসাদকে? নাকি বিদ্রোহীদেরকে? মূল প্রসঙ্গে পরে যাই, তার আগে ইরান প্রসঙ্গে কিছু বলি।

শুরু করি চেতনা দিয়ে। আমাদেরকে শেখানো হয়, যেহেতু একাত্তরে পাকিস্তান আমাদের উপর গণহত্যা চালিয়েছে, তাই কেয়ামত পর্যন্ত সব পাকিস্তানীকে আমাদের ঘৃণা করতে হবে। এমনকি, পাকিস্তানের উপর দিয়ে যে ফ্লাইট চলে, সেই প্লেনেও চড়া যাবে না। অন্যদিকে ভারত যেহেতু আমাদের বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়েছে, তাই কেয়ামত পর্যন্ত তাদেরকে ভালোবাসতে হবে। চাওয়ার আগেই সবকিছু তাদেরকে তুলে দিতে হবে।

Continue reading সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত?