Tag Archives: লিবিয়া

লিবিয়ার রাজনীতিতে ২০১৮ সালে কী ঘটবে?

আন্তর্জাতিক রাজনীতি নিয়ে কয়েকটা হাফ অনুবাদ টাইপ লেখা দিয়েছিলাম Roar বাংলাতে, কিন্তু নতুন বছরে লিবিয়ার রাজনীতিতে কী ঘটবে, সেটা নিয়ে লেখা হয়নি। লিবিয়ার ব্যাপারটা আসলে ভীষণ জটিল। ক্রমাগত অ্যালায়েন্স শিফটিংয়ের কারণে লিবিয়া, ইয়েমেন এবং সিরিয়ার রাজনীতি খুবই আনপ্রেডিক্ট্যাবল। তাই কী ঘটবে বলার আগে সাম্প্রতিক সময়ে কী ঘটছে, সেদিকটা একটু দেখি।

যেটা আশা করিনি, লিবিয়া নির্বাচনের দিকে হাঁটছে। তবে আশাবাদী হওয়ার খুব বেশি কারণ নাই। নির্বাচন তখনই ফলপ্রসু হয়, যখন একটা অনিশ্চয়তা থাকে – লড়াইটা প্রায় সমান সমান হয়। কিন্তু যদি নির্বাচনের আগেই বলে দেওয়া যায় কারা জিতবে, এবং ল্যান্ডস্লাইডে জিতবে, তাহলে সেই নির্বাচন শেষ পর্যন্ত বানচাল হয়ে যাওয়ার অথবা ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। লিবিয়াতে সম্ভবত সেটাই হতে যাচ্ছে।

Continue reading লিবিয়ার রাজনীতিতে ২০১৮ সালে কী ঘটবে?

Advertisements

গাদ্দাফী এবং আরাফাত – এক কালের দুই বিপ্লবী

প্রথম জীবনে গাদ্দাফী ছিলেন বিপ্লবী চরিত্রের নেতা। তার মূলনীতিগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল আরব জাতীয়তাবাদ প্রতিষ্ঠা করা এবং ইসরায়েলকে উচ্ছেদ করা। লিবিয়াতে ক্ষমতায় আসার পরপরই গাদ্দাফী লিবিয়ার সম্পূর্ণ ইহুদী সম্প্রদায়কে বহিষ্কার করেছিলেন। অবশ্য এটা কতটুকু জাস্টিফাইড ছিল, সেই আলোচনায় এখানে গেলাম না।

Continue reading গাদ্দাফী এবং আরাফাত – এক কালের দুই বিপ্লবী

মুগ্ধ হওয়ার মতো অসাধারণ কিছু লিবিয়ান চিত্রকর্ম

আব্দুর রাজ্জাক আল-রিয়ানী একজন লিবিয়ান চিত্রশিল্পী। সম্ভবত লিবিয়ার সেরা চিত্রশিল্পীদের মধ্যে একজন। অন্তত আমার কাছে তার আঁকা প্রতিটি ছবিই ‌অসাধারণ মনে হয়। ক্যানভাসের উপর তেল রঙে আঁকা তার একেকটি ছবিতে জীবন্ত হয়ে ফুটে ওঠে লিবিয়ার মানুষজন, ঘরবাড়ি এবং আসবাবপত্র।

আব্দুর রাজ্জাক আল-রিয়ানীর জন্ম ত্রিপলী, লিবিয়াতে। ১৯৯১ সালে ত্রিপলী ইউনিভার্সিটি (তৎকালীন আল-ফাতাহ ইউনিভার্সিটি) থেকে চারুকলারয় স্নাতক অর্জন করেন। এরপর ২০০৫ সালে ইতালির রোম ইউনিভার্সিটি অফ ফাইন আর্টস থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি মিসরের আলেক্সান্দ্রিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফাইন আর্টসের উপর পিএইচডি করছেন।  লিবিয়া ছাড়াও মাল্টা, ইতালি, সংযুক্ত আরব আমিরাত সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার চিত্রকর্ম প্রদর্শিত হয়েছে।

Continue reading মুগ্ধ হওয়ার মতো অসাধারণ কিছু লিবিয়ান চিত্রকর্ম

গাদ্দাফীর শাসণামলের ১০টি ফ্যাক্ট: সত্য না মিথ্যা?

মোয়াম্মার আল-গাদ্দাফীর গুণগান সম্বলিত একটি ভাইরাল লিস্ট পাওয়া যায় ইন্টারনেটের বিভিন্ন সাইটে, যেখানে গাদ্দাফীর সময়ে লিবিয়ানরা কত সুখে-শান্তিতে ছিল, সেটি বোঝানোর জন্য ১০টি বা ১২টি পয়েন্ট উল্লেখ করা হয়। লিস্টটি অত্যন্ত জনপ্রিয়, দুদিন পরপরই কেউ না কেউ এটি শেয়ার করে, এবং অবধারিতভাবে আমার ফেসবুক ফ্রেন্ডদের কেউ না কেউ আমাকে সেখানে ট্যাগ করে এর সত্যতা জানতে চায়। অনেক দেরিতে হলেও শেষ পর্যন্ত এর সত্যতা যাচাইমূলক একটি লেখা লিখেই ফেললাম।

Continue reading গাদ্দাফীর শাসণামলের ১০টি ফ্যাক্ট: সত্য না মিথ্যা?

কাজলা দিদির প্যারডি

খেজুর গাছের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ঐ,
মা গো আমার ঘুম আসে না, ঘুমের ওষুধ কই?

ত্রিপলী আর বেনগাজীতে
ধুড়ুম-ধাড়ুম বোমবাজিতে,
বারুদের গন্ধে ঘুম আসে না, একলা জেগে রই।
মা গো আমার হাতের কাছে ঘুমের ওষুধ কই?

গুলির খোসায় ছেয়ে গেছে এয়ারপোর্টের রোড,
দেশের ভেতর করছে বিরাজ ইমার্জেন্সী মোড।
বিল্ডিংগুলোর ফাঁকে ফাঁকে,
স্নাইপারেরা লুকিয়ে থাকে।
মেরেই হঠাত বসতে পারে পেয়ে গোপন কোড,
সাবধানেতে থাকিস মাগো, এড়িয়ে চলিস রোড।

খেজুর গাছের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ঐ,
মা গো আমার ঘুম আসে না, ঘুমের ওষুধ কই?
মাথার উপর সারাটি দিন,
উড়ছে বিমান বিরতিহীন,
ড্রোনের শব্দে ঘুম আসে না, তাই তো জেগে রই।
এমন সময় মা গো আমার ঘুমের ওষুধ কই?

প্রথম লেখা: ১৭ আগস্ট, ২০১৪, ফেসবুকে, সে সময় ত্রিপলীর এয়ারপোর্ট রোডে এবং বেনগাজীতে তুমুল যুদ্ধ চলছিল।

প্রতি ঈদে লিবিয়ানরা করে গালাগালি, আর আমরা করি বকাবকি

ঈদের দিন সকাল বেলা পুরো আরব বিশ্বে গালাগালির ধুম পড়ে যায়। অপরিচিতরা তাও একটু রেহাই পায়, কিন্তু পরিচিতদের কোন রেহাই নেই। দেখা হওয়া মাত্রই একজন আরেকজনকে সমানে গালাগালি করতে থাকে। কি, বিশ্বাস হচ্ছে না? তাহলে ব্যখ্যা করছি।

আমরা যেরকম ঈদের দিন একজন আরেকজনের সাথে কোলাকুলি করি, আরবীয়রা কিন্তু সেরকম কোলাকুলি করে না। তারা একজন আরেকজনের গালের পাশে গাল নিয়ে চুমুর মতো শব্দ করে। এটাকে ইচ্ছা করলে চুমাচুমিও বলা যায়। কিন্তু যেহেতু তারা প্রকৃতপক্ষে চুমু দেয় না, জাস্ট গালের পাশে গাল রাখে, কাজেই একে গালাগালি বলাই ভালো!

আর এই সূত্র অনুসারে এশীয়রা যে কোলাকুলি করে, সেটা যেহেতু বুকের সাথে বুক মিলিয়েই করা হয়, কাজেই তাকে ইচ্ছে করলে বুকাবুকি বা বকাবকিও বলা যেতে পারে!

ঈদ হল একটা প্রধান ধর্মীয় উত্‍সব। আর এই দিনে কিনা মনুষ্য জাতির একদল বকাবকি আর আরেক দল গালাগালি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। বড়ই আফসোস!

প্রথম লেখা: সামহোয়্যার ইন ব্লগে

ভূমধ্যসাগরে বাংলাদেশী পরিবারের মৃত্যু

মাঝখানে ভূমধ্যসাগর নামের এক মৃত্যুপুরী, পেছনে এক ব্যর্থরাষ্ট্রের ভবিষ্যতহীন জীবন, সামনে ইউরোপের নবজীবনের হাতছানি। জীবনটাকে হাতের মুঠোয় নিয়ে প্রতিদিন শতশত মানুষ পাড়ি দিচ্ছে এই ভয়াল মৃত্যুকুপ।

Continue reading ভূমধ্যসাগরে বাংলাদেশী পরিবারের মৃত্যু