Tag Archives: সাহিত্য

হুমায়ূন আহমেদের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার

এইটা কোন ব্যাঙ্গাত্মক বা ফানি পোস্ট না, সিরিয়াসলিই বলছি। বাংলাদেশের কাউকে যদি শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দিতে হয়, তবে সেটা কাজী আনোয়ার হোসেনকেই দেওয়া উচিত। জ্বী, ঠিকই পড়ছেন, সাহিত্যে না, শান্তিতেই নোবেল পুরস্কার দেওয়ার কথা বলছি।

বাংলাদেশের বিপুল পরিমাণ মানুষকে বইমুখী করার ব্যাপারে দুইজন ব্যক্তির অবদান অনস্বীকার্য। এক. হুমায়ূন আহমেদ, দুই, কাজী আনোয়ার হোসেন। শুধু সেবার আর হুমায়ুন আহমেদের তথাকথিত হলকা আর চটুল বই পড়তে পড়তেই কত পোলাপান যে নিজের অজান্তেই পাঠক হয়ে গেছে, তার কোন হিসাব বের করা যাবে না।

Continue reading হুমায়ূন আহমেদের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার

Advertisements

কাজলা দিদির প্যারডি

খেজুর গাছের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ঐ,
মা গো আমার ঘুম আসে না, ঘুমের ওষুধ কই?

ত্রিপলী আর বেনগাজীতে
ধুড়ুম-ধাড়ুম বোমবাজিতে,
বারুদের গন্ধে ঘুম আসে না, একলা জেগে রই।
মা গো আমার হাতের কাছে ঘুমের ওষুধ কই?

গুলির খোসায় ছেয়ে গেছে এয়ারপোর্টের রোড,
দেশের ভেতর করছে বিরাজ ইমার্জেন্সী মোড।
বিল্ডিংগুলোর ফাঁকে ফাঁকে,
স্নাইপারেরা লুকিয়ে থাকে।
মেরেই হঠাত বসতে পারে পেয়ে গোপন কোড,
সাবধানেতে থাকিস মাগো, এড়িয়ে চলিস রোড।

খেজুর গাছের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ঐ,
মা গো আমার ঘুম আসে না, ঘুমের ওষুধ কই?
মাথার উপর সারাটি দিন,
উড়ছে বিমান বিরতিহীন,
ড্রোনের শব্দে ঘুম আসে না, তাই তো জেগে রই।
এমন সময় মা গো আমার ঘুমের ওষুধ কই?

প্রথম লেখা: ১৭ আগস্ট, ২০১৪, ফেসবুকে, সে সময় ত্রিপলীর এয়ারপোর্ট রোডে এবং বেনগাজীতে তুমুল যুদ্ধ চলছিল।

একুশের কবিতা

ভাবতে পারিনি কভু, আসবে ফিরে সে তপু
আবার মোদের মাঝে।
যে তপু গেছিল চলে, কাউকে কিছু না বলে,
দ‌‌ূর অজানার কাছে।

দেখিয়াছিলাম যাকে, বছর চারেক আগে,
শেষটিবারের মত,
ফিরিয়া তাহাকে পেয়ে, খুশি হইবার চেয়ে
অবাক হলাম শত।

Continue reading একুশের কবিতা