সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত?

সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত? আসাদকে? নাকি বিদ্রোহীদেরকে? মূল প্রসঙ্গে পরে যাই, তার আগে ইরান প্রসঙ্গে কিছু বলি।

শুরু করি চেতনা দিয়ে। আমাদেরকে শেখানো হয়, যেহেতু একাত্তরে পাকিস্তান আমাদের উপর গণহত্যা চালিয়েছে, তাই কেয়ামত পর্যন্ত সব পাকিস্তানীকে আমাদের ঘৃণা করতে হবে। এমনকি, পাকিস্তানের উপর দিয়ে যে ফ্লাইট চলে, সেই প্লেনেও চড়া যাবে না। অন্যদিকে ভারত যেহেতু আমাদের বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়েছে, তাই কেয়ামত পর্যন্ত তাদেরকে ভালোবাসতে হবে। চাওয়ার আগেই সবকিছু তাদেরকে তুলে দিতে হবে।

Continue reading সিরিয়াতে কোন পক্ষকে সমর্থন করা উচিত?

Advertisements

‘লিবিয়ার শতবর্ষের নির্জনতা’ : মোজাম্মেল হোসেন ত্বোহার সাক্ষাৎকার

ইরফানুর রহমান রাফিন একজন জনপ্রিয় ব্লগার। সম্প্রতি তিনি নিজের ব্লগে ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন ব্যক্তির সাক্ষাৎ প্রকাশ করা শুরু করেছেন। প্রথম সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন জনপ্রিয় রাজনৈতিক সমালোচক অনুপম দেবাশীষ রয়ের। আর দ্বিতীয় সাক্ষাৎকারটি ছিল আমার।

এই সাক্ষাৎকারে লিবিয়ার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস, গাদ্দাফীর উত্থান, তার শাসণামলের ভালোমন্দ দিকগুলো, ২০১১ সালের বিদ্রোহের সূচনা, দেশী-বিদেশী শক্তির প্রভাব, বিদ্রোহ পরবর্তী লিবিয়ার রাজনীতি, আল-ক্বায়েদা-আইসিসের উত্থান, তাদের ক্ষমতার উৎস, লিবিয়ার ভবিষ্যৎ সহ অনেক কিছু উঠে এসেছে।

মূল সাক্ষাৎকারটি পড়তে পারেন এই লিংক থেকে

Continue reading ‘লিবিয়ার শতবর্ষের নির্জনতা’ : মোজাম্মেল হোসেন ত্বোহার সাক্ষাৎকার

সা’দী গাদ্দাফীর বর্তমান ও ভবিষ্যত

গাদ্দাফীর ছেলে সা’দী গাদ্দাফীকে একটি হত্যা মামলায় নির্দোষ হিসেবে রায় দিয়েছে ত্রিপলীর একটি আদালত।

সা’দী গাদ্দাফীর তৃতীয় ছেলে। ছোটকালে আমরা তাকে ফুটবলার হিসেবেই বেশি চিনতাম। লিবিয়ার ন্যাশনাল ফুটবল টীমের ক্যাপ্টেন ছিল কিছুদিন। খেলোয়াড় হিসেবে মোটামুটি ভালো মানের, কিন্তু লিবিয়াতে তার চেয়েও বেটার প্লেয়ার ছিল। তারপরেও মিডিয়াতে সারাক্ষণ ফোকাসে থাকত। দেশের ভেতরে খেলার সময় প্রায়ই দেখা যেত পুরা টীম তার জন্য অপেক্ষা করছে, শেষ মুহূর্তে সে হেলিকপ্টারে করে এসে নামার পর খেলা শুরু হচ্ছে 

Continue reading সা’দী গাদ্দাফীর বর্তমান ও ভবিষ্যত

ফ্যাক্ট চেকিং সাইটের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং গণমাধ্যমের ব্যর্থতা

‘ফেইক নিউজ’ শব্দটি সাম্প্রতিক সময়ের আবিষ্কার হলেও বাস্তবে সংবাদপত্রে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন নতুন কিছু না। যুগ যুগ ধরেই গণমাধ্যমে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশিত হয়ে আসছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে এবং সর্বোপরি সর্বস্তরে ইন্টারনেট ব্যবহার সহজলভ্য হওয়ায় ফেইক নিউজ যেন মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তো ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচিত হওয়ার পেছনে প্রথমে রাশিয়ান ফেইক নিউজের প্রভাব এবং এরপর কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার ভূমিকা নিয়ে রীতিমতো তোলপাড় হয়ে গেছে! তবে সব রোগেরই যেমন ওষুধ আছে, তেমনি ফেইক নিউজের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য দিনে দিনে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ফ্যাক্ট চেকিংয়ের বিভিন্ন সাইট।

Continue reading ফ্যাক্ট চেকিং সাইটের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং গণমাধ্যমের ব্যর্থতা

ফেসবুকের তথ্য চুরির উপকারিতা

ফেসবুক স্ক্যান্ডাল নিয়ে অনেকেই বিশাল বিশাল জ্ঞানগর্ভ লেখা দিছে, আমিও রোরের জন্য একটা অজ্ঞানগর্ভ লেখা লিখছিলাম। বাট ভিন্নভাবেও একটু চিন্তা করি।

আমার মতে, ফেসবুক ইউজারদের ডেটা সরকারী গোয়েন্দা সংস্থাগুলো দ্বারা ব্যবহৃত হয় – এটাই নেগেটিভ বিষয়। যদি সেটা না হয়ে শুধুমাত্র আমাদের লাইক-আনলাইকের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন প্রডাক্টের বিজ্ঞাপন আমাদের সামনে আসত, তাহলে সমস্যা কী ছিল? আমার তো মনে হয় এটা বরং একটা প্লাস পয়েন্ট!

Continue reading ফেসবুকের তথ্য চুরির উপকারিতা

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ে বিএনপি সমর্থকদের অবস্থান

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে বেশ কিছু বিচ্ছিন্ন স্ট্যাটাস পড়লাম। যা মনে হলো, নেক্সট টাইম বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসবে, তখন আমাদের প্রচলিত ইতিহাসে যেসব মিথ আছে, তার অনেকগুলোই গুঁড়িয়ে যাবে।

যেকোনো দেশেই বিজয়ীদের হাতে মিথ তৈরি হয়। প্রাথমিক আবেগটা কেটে গেলে হয়তো একটা সময় পরে ধীরে ধীরে সেগুলো অ্যাকাডেমিকালি সেটেলডও হয়ে যায়। বাংলাদেশেও হয়তো সেটা হতো, কিন্তু সে সম্ভাবনা পুরোপুরি শেষ হয়ে গেছে।

Continue reading মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ে বিএনপি সমর্থকদের অবস্থান

আমেরিকা যেভাবে আইএসকে অস্ত্র সাপ্লাই দেয়

আল-জাজিরার এই ডকুমেন্টারিটা খুবই ইন্টারেস্টিং। কেন, সেটা ব্যাখ্যা করছি। তবে এটা দেখলে আবারও বুঝতে পারবেন কেন আমি হাবিজাবি ভিত্তিহীন প্রপাগান্ডা সাইটের কন্সপিরেসী থিওরীর চেয়ে প্রতিষ্ঠিত মিডিয়ার ইনভেস্টিগেটিভ আর্টিকেল/ডকুমেন্টারি বেশি পছন্দ করি।

প্রচলিত ফেক নিউজের মতো এই ডকুমেন্টারিতে আইএসের কাছে অমুক অস্ত্র পাওয়া গেছে বলেই খালাস হয়নি, সেটা ট্রেস করে বের করা হয়েছে কোথা থেকে কীভাবে এসেছে। কিন্তু তারপরেও ইচ্ছাকৃতভাবে কিছু তথ্য বিকৃতি করা হয়েছে। কয়েকটা পয়েন্ট উল্লেখ করছি।

Continue reading আমেরিকা যেভাবে আইএসকে অস্ত্র সাপ্লাই দেয়

সৌদি আরবে রেপিস্টকে পাঁচ মিনিটে বিচার মৃত্যুদন্ড দেওয়ার ভিডিওর সত্যাসত্য

অনেকেই ভিডিওটা শেয়ার করছে। একটা এক্সিকিউশনের ভিডিও। দাবি করা হচ্ছে, এটা নাকি সৌদি আরবের এক রেপিস্টের ভিডিও, যাকে ধরা পড়ার ৫ মিনিটের মধ্যে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় বলা হচ্ছে, এটা দুবাইর রেপিস্ট, ১৫ মিনিটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে।

এখানে কয়েকটা ব্যাপার আছে। ফ্যাক্টচেক করার টাইম নাই, বাট আমার অ্যানালাইসিসটা বলি:

Continue reading সৌদি আরবে রেপিস্টকে পাঁচ মিনিটে বিচার মৃত্যুদন্ড দেওয়ার ভিডিওর সত্যাসত্য

সৌদি সংক্রান্ত নিউজের বিশ্বাসযোগ্যতা

যা সন্দেহ করেছিলাম, সৌদি বিমানবন্দরগুলোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ইসরায়েলকে – এই সংবাদটি মিথ্যা

এইটা খুবই সিম্পল একটা রুল। সৌদি সংক্রান্ত কোনো নিউজ যদি অন্য কোনো মাধ্যম থেকে না এসে রেডিও তেহরান থেকে আসে, তাহলে সেটা মিথ্যা/অতিরঞ্জিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যাচাই করতে যাওয়াটাই সময়ের অপচয়, ডাইরেক্ট ইগনর করা এবং অন্য কোনো মিডিয়ার জন্য অপেক্ষা করা বেটার।

Continue reading সৌদি সংক্রান্ত নিউজের বিশ্বাসযোগ্যতা

যুদ্ধক্ষেত্র থেকে শান্তির বার্তা